মৎস খামারীকে ব্ল্যাকমেইল করে চাঁদা দাবি, র‌্যাবের হাতে যুবক গ্রেপ্তার

15

হারুনুর রশিদ :
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে এক মৎস খামারের মালিক কবির হোসেন ও তার কর্মচারী আব্দুল করিমকে উলঙ্গ করে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে চাঁদা দাবির অভিযোগে মোঃ আব্দুস সালাম (২১) নামের এক যুবককে আটক করে র‌্যাব-১১। রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়ারপুর এলাকার বাহাদুরপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে মৎস খামারী ও তার কর্মচারীর উলঙ্গ করে ভিডিও ধারনকৃত একটি মোবাইল ফোন, দুটি সীম, ৫ কফি প্রিন্ট ছবি ও একটি ডিভিডি ক্যাসেট উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত আব্দুস সালাম (২১) নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার বাহাদুরপুর এলাকার আবু সায়েদের ছেলে।

র‌্যাব-১১ সিপিসি-৩ লক্ষ্মীপুর জানায়, মৎস খামারী কবির হোসেন অভিযোগ করে বলেন, চলতি বছরের গত মাসের ৩০ তারিখ রাতে আমি ও আমার কর্মচারী আব্দুল করিম খামার পাহারায় ছিলাম। তখন একই এলাকার আব্দুল সালাম ও তার সহযোগী মোঃ রায়হান, আকবর হোসেন, মোঃ লিটন, মোঃ রাকিব হোসেন, সুজন, বাবু, মধু এবং ইমন খামারে মাছ চুরি করতে আসে। আমরা বাধা দিলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাদেরকে মারধর করে । একপর্যায়ে আমার ও আমার কর্মচারীর পরনের কাপড় খুলে তাদের গামছা দিয়ে চোখ বেঁধে মিঠু চেয়ারম্যানের বাড়ির পাশের একটি বাগানে নিয়ে নিয়ে যায়। এসময় তাদের মোবাইল দিয়ে আমাদের উলঙ্গ করে ভিডিও ধারণ করে। গ্রেপ্তারকৃত আব্দুস সালাম আমার কর্মচারীর অন্ডকোষ চেপে ধরে স্বীকারুক্তি ভিডিও নেয় আমি নাকি আমার কর্মচারীকে ধর্ষন করেছি। ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দিবে বলে আমাকে হুমকি দেয় এবং দু’লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। এবিষয় স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যানকে বলার পরও কোন বিচার করেননি তারা। জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছিলাম। তাই র‌্যাব-১১ কে অভিযোগ করি।

র‌্যাব জানায়,বাদির অভিযোগের ভিত্তিতে রবিবার বিকেলে বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়ারপুর থেকে পালানোর সময় গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব-১১ এর লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আবু সালেহ জানান, গ্রেপ্তারকৃত যুবকের বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ থানায় সাইবার ক্রাইম অপরাধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। বাকি আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। অন্যায়কারীদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অভ্যাহত থাকবে।

আর/জে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here