রায়পুরে বিএনপি প্রার্থীর বাসার সামনে ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগ

445

নিজস্ব প্রতিবেদক :
লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর বাসভবনের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে বিএনপির মেয়র প্রার্থী এবিএম জিলানীর বাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে। এছাড়াও প্রার্থীসহ দলের নেতাকর্মীদের তিন ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় এবিএম জিলানী জেলা রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করলে দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রায়পুর সহকারি কমিশনার ভূমি আক্তার জাহান সাথী ও ওসি আবদুল জলিল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনেন।

এবিএম জিলানী অভিযোগে জানান, পৌর এলাকার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দেনায়েতপুর এলাকায় ও সহকারি কমিশনারের (এসিল্যান্ড) কার্যালয়ের সামনে বিএনপির প্রার্থী এবিএম জিলানী বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে এই বাসার সামনে রাস্তায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী বাহিনী পাঁচ-ছয়টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। নির্বাচনের দিন তিনিসহ (বিএনপির প্রার্থী) দলীয় নেতা-কর্মীদের ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত না থাকতে হুমকি দিয়ে মোটরসাইকেলে করে সন্ত্রাসীরা চলে যায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক তিনি রায়পুর নির্বাচন কার্যালয়, পুলিশ ও ম্যাজিষ্ট্রেটকে ফোনে জানান। এরপর এ্যাসিল্যান্ড ও ওসির নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্ফোরকের খোসা সংগ্রহ করে নিয়ে যান।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আক্তার জাহান সাথী ও ওসি আবদুল জলিল জানান, খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানতে পেরেছেন সেখানে পটকা ফোটানো হয়েছে। পটকার খোসাও উদ্ধার করা হয়। পরিস্থিতি শান্ত করে উভয়পক্ষের লোকদের ঘটনাস্থল থেকে বিদায় করা হয়েছে।

বিএনপির প্রার্থী এবিএম জিলানী বলেন, নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকেই তাকে ও তার কর্মী-সমর্থকদের বাধা দিয়ে আসছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট ও তার লোকজন। প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাকে হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মনিরুল ইসলাম হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম মিঠু, বিএনপি নেতা হোসেন আহাম্মদ বাহাদুর, সাবেক ভিপি নজরুল ইসলাম লিটন, আরমান হোসেন, আনিসুর রহমানসহ ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতা-কর্মীরা।

অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করে আওয়ামীলীগের প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট মুঠোফোনে জানান, তাকে হেয় করার জন্য প্রতিপক্ষ এ ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা নিজেরা চাদ থেকে ককটেল মেরে আমার লোকের উপর দোষ চাপাচ্ছে।

জেলা রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন বলেন, বাসার সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ও তাকেসহ দলের নেতা কর্মীদের অবরুদ্ধ করে রাখার বিষয়ে বিএনপির প্রার্থী মুঠোফোনে অভিযোগের বিষয়টি জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, আগামী রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারী) রায়পুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট নৌকা এবং বিএনপির মেয়র প্রার্থী এবিএম জিলানী ধানের শীষ প্রতীকসহ ৬ প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

দেশ জার্নাল/আরজে

  •  
    416
    Shares
  • 416
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here