শুক্রবার , ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  1. অনুসন্ধান
  2. অন্যান্য
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আর্ন্তজাতিক
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গণমাধ্যম
  9. জাতীয়
  10. ধর্ম
  11. নারী ও শিশু
  12. প্রবাস
  13. ফিচার
  14. বিনোদন
  15. মতামত

রায়পুরে ইউপি নির্বাচন : নৌকার বাঁধা বিদ্রহী প্রার্থী

প্রতিবেদক
দেশ জার্নাল
নভেম্বর ২৬, ২০২১ ৭:৫৬ অপরাহ্ণ
Desh Journal

হারুনুর রশিদ :
যেন খাওয়া-দাওয়া নেই, চোখে নেই ঘুম। কোমরবেঁধে ভোটের মাঠে প্রার্থীরা। জয়ের নেশায় ছুটে যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। রাত-দিন সমানতালে চালাচ্ছেন প্রচারনা। প্রার্থীদের জমজমাট আর বিরামহীন প্রচার-প্রচারনায় সরগরম পুরো রায়পুর উপজেলা।

দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই যেন উত্তাপ বাড়ছে। বাড়ছে শংকাও। এবারের নির্বাচনে শুধু চেয়ারম্যান প্রার্থীরাই নয়, মেম্বার প্রার্থীদের জমজমাট প্রচারনা চলছে। প্রচারণায় পিছিয়ে নেই সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থীরাও। এ চিত্রটি দেখা যাচ্ছে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার সকল ইউনিয়নে।

এ উপজেলায় ভোট অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ নভেম্বর। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতিক নিয়ে লড়াইয়ে নেমেছেন ১নং ইউনিয়নে শহিদ উল্লাহ বিএসসি, ৩নং চর মোহনা ইউনিয়নে শফিক পাঠান, ৪নং সোনাপুর ইউনিয়নে ইউসুফ জালাল কিসমত, ৫নং চরপাতা ইউনিয়নে সুলতান মামুন, ৬নং কেরোয়ায় শাহিনুর আক্তার রেখা, ৭নং ইউনিয়নে তাফাজ্জল হোসেন, ৮নং ইউনিয়নে আবু সালেহ মিন্টু ফারায়েজী, ৯নং ইউনিয়নে জিকু হাওলাদার।

বিনা প্রতিদন্ধী হিসেবে নৌকা মার্কা নিয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন ২নং উত্তর চরবংশী ইউনিয়নে মাষ্টার আবুল হোসেন, ১০নং রায়পুর ইউনিয়নে সফিউল আজম সুমন।

স্বতন্ত্র হিসেবে আনারস মার্কা নিয়ে বামনী ইউনিয়নে মন্জুল কবির বিএসসি, ৬নং কেরোয়ায়  ঘোড়া মার্কা নিয়ে জনগনের মনোনীত ইউনুস হোসেন।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন ১নং উত্তর চর আবাবিল ইউনিয়নে আনারস মার্কা নিয়ে দুলাল হাওলাদার, ৫নং চরপাতা ইউনিয়নে খোরশেদ আলম, ৬নং কেরোয়া ইউনিয়নে আনারস মার্কা নিয়ে বাবুল পাটওয়ারী, ৮নং ইউনিয়নে রশিদ মোল্লা।

এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বহিঃস্কৃত বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও নির্বাচনে বিএনপির কোন অংশ নেই। তবে দলের মধ্যে রয়েছে তীব্র গ্রুপিং। ফলে বিএনপির ভোট কোন দিকে যাবে তা বলা মুশকিল।

নৌকা প্রতিকের কয়েকজন প্রার্থী  বলেন, নির্বাচন হবে অবাধ ও নিরপেক্ষ। নির্বাচনকে নিয়ে অনেকেই নানা প্রশ্নবিদ্ধ করে তুললেও সেটি সঠিক নয়। প্রশাসন নিরপেক্ষ ভাবেই কাজ করবে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মঞ্জুল কবির বিএসসি ও ইউনুস হোসেন নির্বাচন সুষ্ঠ হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন। তারা বলেন, প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন গুলোতে যেভাবে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা ভোট কারচুপি করছে তাতে করে এখানে সুষ্ঠ নির্বাচন হবে কিনা তা দেখার বিষয়। আমরা চাই নিরপেক্ষ ভোট হোক। সেই ভোটে যে নির্বাচিত হবে তাকেই আমরা মেনে নেবো। সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ ভোট যাতে অনুষ্ঠিত হয় সেদিকে প্রশাসন দৃষ্টি দেবেন এটাই কামনা করি। জনগন ভোট দিতে পারলে নির্বাচিত হবেন বলেও আশাবাদ প্রকাশ করেন তারা।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা এলাকার উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি আর কথার ফুলঝুরি নিয়ে ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। কাকডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীরা ও তাদের কর্মীরা প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রার্থীদের জমজমাট প্রচারনায় উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে রায়পুরের প্রতিটি এলাকায়।

কথা হয় বামনী ইউনিয়নের সাইচা, সাগরদী, কলাকোপা ও কেরোয়া ইউনিয়নের , দক্ষিণ কেরোয়া এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার বেশ কিছু ভোটারের সাথে, তাদের ভাষ্য-  দীর্ঘদিন ধরে অবহেলার মধ্য রয়েছে। এখানে উন্নয়ন বলতে তেমন কিছুই হয়নি।  এলাকার উন্নয়ন যিনি করতে পারবেন তাকেই তারা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। তাছাড়া সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত ইউনিয়ন গঠনে যারা ভূমিকা নেবেন তাদের পাশেই রয়েছেন সাধারন ভোটারেরা।

দেশ জার্নাল/আরজে

আপনার মন্তব্য লিখুন

সর্বশেষ - আইন-আদালত