রামগঞ্জে শ্রমিক নিয়োগে ঘুষ আদায়ের অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

18

নিজস্ব প্রতিবেদক :
রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদ উল্যাহ’র বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের (আর ই আর এমপি প্রকল্পের) অধীনে মাটি কাঁটার কাজে নারী শ্রমিক নিয়োগে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগী নারী শ্রমিকরা সম্প্রতি রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, রাস্তায় মাটি কাঁটার কাজে ৪ বছর মেয়াদি চুক্তি ভিত্তিক নারী শ্রমিক নিয়োগ দেওয়ার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলে ইছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ১৭ জন নারী শ্রমিকে কাজে নিয়োগের কথা বলে ১০ হাজার টাকা আদায় করে।

এদের মধ্যে ১০ জনকে নিয়োগ দেয় এলজিআরডি বাকী সাত জনকে নিয়োগ না দেওয়া টাকা ফেরত চাইলে চেয়ারম্যান বিভিন্ন তালবাহানা করতে থাকে।

অভিযোগকারী নারী শ্রমিকরা বলেন, চেয়ারম্যান রাস্তায় মাটি কাঁটার কাজ দিবে বলে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে কিন্তু সে টাকা ফেরত পেতে অভিযোগ করেছি।

অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান শহিদ উল্যাহ ঘুষ নেওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, উপজেলা এলজিআরডি অফিস আমার কাছে তালিকা চাইলে আমি ১৭ জনের তালিকা দেই ১০ জন নিয়োগ পায়। বাকী ৭ জন নিয়োগ না পাওয়া ক্ষোভে এ মিথ্যা আভিযোগ করে।

রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টি নিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here